Atheist Chapter

কোরান তিলাওয়াত করি

অনেক প্রশ্ন অজানা। কারণ ১৪০০ বছর আগে এই দুনিয়াতে আমি ছিলাম না। তখন কি হয়েছিলো না হয়েছিলো সেসব বিষয় নিয়েও অনেক বিভ্রান্ত আছে যা অস্বাভাবিক কিছুই না। মণের গনিহে অনেক প্রশ্ন এসে জমা হয় কিন্তু উত্তর পাওয়া বেশ কঠিন হয়ে পরে আমরা শুধু মাত্র বোকার মতোই প্রশ্ন করে যাই কিন্তু কাউকে উত্তরের জন্য জিজ্ঞেস করলে শুনতে হয় ধর্ম নিয়ে প্রশ্ন করো না, শুধু বিশ্বাস করো। গাধা থেকে মানুষ হবার চেষ্টা করছি কিন্তু জোর করে এরাই আমাকে আবার গাধা বানানোর চেষ্টা করছে।যেমন দেখুন –
সুরা ফাতেহা:

১) যাবতীয় প্রশংসা আল্লার। ২) যিনি পরম দয়াময় ও অতি দয়ালু। ৩) বিচার দিনের অধিকর্তা। ৪) আমরা তোমারই ইবাদত করি ও তোমারই সাহায্য চাই। ৫) আমাদেরকে সোজা পথে পরিচালিত করো। ৬) যাদেরকে পুরস্কৃত করেছ তাদের পথে। ৭) যারা অভিশপ্ত ও পথভ্রষ্ট তাদের পথে নয়।

কোরানের এক নাম্বার সুরা – সুরা ফাতেহা কি আল্লার রচিত? তাহলে আমার কিছু প্রশ্ন আছে।
১) আল্লা নিজেই কি বলছেন, যাবতীয় প্রশংসা আল্লার? কেউ কি নিজের কথা এভাবে বলে? আল্লা যদি বলেই থাকেন, তবে তিনি “যাবতীয় প্রশংসা আমার” না বলে “যাবতীয় প্রশংসা আল্লার” বললেন কেন? আল্লার তো বলার কথা, “যাবতীয় প্রশংসা আমার।” এই বাক্যটি আল্লার উদ্দেশ্যে অন্য কেউ বলেছে, তাই তো এই বাক্যে সুস্পস্ট। তা নয় কি?
২) আল্লা নিজেকে “যিনি” বলছেন কেন? তার তো বলার কথা, “আমিই পরম দয়াময় ও অতি দয়ালু।” আর কেউ দয়ালু হলেও কি নিজের কথা নিজেই এভাবে বলে? বিদ্যাসাগর মশাই সারা জীবন মানুষের জন্য কাজ করেছেন। নিজের সর্বস্ব মানুষের জন্য বিলিয়ে দিয়েছেন। নিজে না খেয়ে অন্যকে খাইয়েছেন। তিনি কি কখনো নিজের সম্পর্কে বলেছিলেন, “বিদ্যাসাগর মশাইই পরম দয়ালু ও অতি দয়াময়”? বিল গেটস বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার মানুষের জন্য, মানবতার জন্য অকাতরে বিলিয়ে দিয়েছেন। এরকম আরো অনেকেই মানবতার জন্য নিভৃতে কাজ করেন। তাঁরা কেউ কি কখনো বলেছেন, “এই যে শোনো, আমি অনেক দয়াময়?” আল্লা দয়ালু হলেও কি এই বাক্যে তার স্থূলতা প্রকাশ পায় না?
৩) তিনি নিজেকে নিজেই যেচে যেচে সবার বিচারক ঘোষণা করেছেন কেন? পৃথিবীর সকল মানুষ কি তাকেই একমাত্র বিচারক মানে -এমন কথা বলেছে? কেউ কেউ যদি তাকে বিচারক হিসেবে না চায়, তাহলে তাদের বিচার তিনি কীভাবে করবেন? এটা কেমন মগের মুল্লুক?
৪) আল্লারা কার ইবাদত করেন? কার সাহায্য চান? আল্লা তো বলেছেন, তিনিই সর্বশক্তিমান ও বিচার দিনের অধিকর্তা। তাহলে তিনিই আবার কার ইবাদত করেন ও কার কাছে সাহায্য চান?
৫) আল্লা প্রার্থনা করছেন, তাকে বা তাদেরকে যেন কেউ একজন সোজা পথে পরিচালিত করেন? যে সর্বশক্তিমান, সে অন্য কারু কাছে সোজা পথে পরিচালিত হবার জন্য আকুল আবেদন করছে কেন? বর্তমানে কি তিনি বাঁকা পথে পরিচালিত আছেন?
৬) কে কাকে পুরস্কৃত করেছে? আল্লা নিজেও কি পুরস্কৃত হতে চান? কার কাছে পুরস্কৃত হতে চান?
৭) যারা অভিশপ্ত ও পথভ্রষ্ট, তাদেরকে অভিশপ্ত ও পথভ্রষ্ট কে করলো? কে সে অভিশম্পাতকারী ও পথভ্রষ্টকারী? কেন সে মানুষকে অভিশাপ দেয় ও পথ ভোলায়?
আমি তো জেনে  শুনেই যা যা লেখা আছে এগুলো নিয়েই কথা বলছি । এখন যদি কেউ গাধার মতো বলে শুধু বিশ্বাস করে যাও তাহলে বলব গাধা হয়ে বাঁচতে চাই না। যত পড়ই তত যানতে পারি। প্রশ্ন করি । জানার ইচ্ছা জাগে। আজগুবি  বিষয় গুলো মানতে কষ্ট হয় বলেই মানতে চাই না। আপনাদের কাছে আমি নাস্তিক আমি নাস্তিক হয়েই থাকি। প্রশ্ন করাকে যদি আপনারা অপরাধের শোঁখে দেখেন তাহলে আপনাদের ধর্ম বিশ্বাস নিয়ে আমার যথেষ্ট সন্দেহ আছে।

Khairulla Khandaker

Follow us

Don't be shy, get in touch. We love meeting interesting people and making new friends.

Most popular